Eprothom Alo

কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহে এলিদ মাইনুল আমিন বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে চার কর্মকর্তা-কর্মচারীকে বদলি করা হয়েছে।

২ জানুয়ারি মতিউর রহমান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সনদ নিতে গিয়ে স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মীর মোবারক হোসাইন, মেডিসিন কনসালট্যান্ট জাকির হোসেনসহ বেশ কয়েকজন চিকিৎসক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীর ওপর চড়াও হন। একপর্যায়ে এসি ল্যান্ড মোবাইল ফোনে ভূমি অফিসের অন্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ডেকে নিয়ে চিকিৎসকসহ কয়েকজনকে লাঞ্ছিত করেন। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের শাস্তির দাবিতে হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও কর্মচারীরা কর্মবিরতি পালন করেন। সংবাদ পেয়ে ঢাকা জেলার অতিরিক্ত প্রশাসক (রাজস্ব) শরীফ রায়হান কবির, ঢাকার সিভিল সার্জন এহসানুল করিম, কেরানীগঞ্জের ইউএনও শাহে এলিদ মাইনুল আমিনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ইউএনওর কার্যালয়ে জরুরি সভা করেন। এ বিষয়ে তদন্ত করে ১৭ জানুয়ারির মধ্যে দায়ী ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

" />
 

Fusce eu nulla semper porttitor felis sit amet

Jan 8,2019 03:04am জাতীয় Iqbal Ahmed Tuhin

চিকিৎসক লাঞ্ছিত: এসি ল্যান্ডসহ বদলি ৪

 

 

ঢাকার কেরানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসকদের লাঞ্ছিত করার ঘটনায় উপজেলা সহকারী কমিশনার-ভূমি (এসি ল্যান্ড) মতিউর রহমানসহ ভূমি অফিসের চার কর্মকর্তা-কর্মচারীকে বদলি করা হয়েছে। বাকি তিনজন হলেন উপজেলা ভূমি ও কেরানীগঞ্জ রাজস্ব সার্কেলের ক্যাশিয়ার রাকিব হাসান, অফিস সহকারী ফজলুল হক ও মো. মহিউদ্দিন।

কেরানীগঞ্জ উপজেলা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বদলি হওয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মতিউর রহমানকে শরীয়তপুর জেলার গোসাইরহাট উপজেলায়, নাজির রাকিব হাসানকে ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলায়, অফিস সহকারী ফজলুল হককে সাভার উপজেলা নির্বাহী কার্যালয়ে ও অফিস সহকারী মহিউদ্দিনকে ধামরাই উপজেলা ভূমি অফিসে বদলি করা হয়েছে।

 

Eprothom Alo

কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহে এলিদ মাইনুল আমিন বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে চার কর্মকর্তা-কর্মচারীকে বদলি করা হয়েছে।

২ জানুয়ারি মতিউর রহমান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সনদ নিতে গিয়ে স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মীর মোবারক হোসাইন, মেডিসিন কনসালট্যান্ট জাকির হোসেনসহ বেশ কয়েকজন চিকিৎসক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীর ওপর চড়াও হন। একপর্যায়ে এসি ল্যান্ড মোবাইল ফোনে ভূমি অফিসের অন্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ডেকে নিয়ে চিকিৎসকসহ কয়েকজনকে লাঞ্ছিত করেন। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের শাস্তির দাবিতে হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও কর্মচারীরা কর্মবিরতি পালন করেন। সংবাদ পেয়ে ঢাকা জেলার অতিরিক্ত প্রশাসক (রাজস্ব) শরীফ রায়হান কবির, ঢাকার সিভিল সার্জন এহসানুল করিম, কেরানীগঞ্জের ইউএনও শাহে এলিদ মাইনুল আমিনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ইউএনওর কার্যালয়ে জরুরি সভা করেন। এ বিষয়ে তদন্ত করে ১৭ জানুয়ারির মধ্যে দায়ী ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

Developed by e-Business Soft Solution