খালেদা জিয়াকে বন্দি রেখে বাকশাল প্রতিষ্ঠা করতে চায় সরকার : ফখরুল

Sep 2,2019 06:36pm রাজনীতি Editor

নিজস্ব প্রতিবেদক, ০২ সেপ্টেম্বর : বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সরকার আজকে পরিকল্পিতভাবে বেগম জিয়াকে বন্দি করে রেখে এবং লাখ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে গণতন্ত্রকে ধ্বংস করছে। এর মধ্যে দিয়ে তারা একদলীয় শাসনব্যবস্থা বাকশাল প্রতিষ্ঠিত করতে চায়। আমরা কি আবারও বাকশালে ফিরে যাব! এত সোজা নয়। কোনো দিনই মেনে নেব না। সোমবার বিকালে দলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রাজধানীতে বর্ণাঢ্য র‌্যালী পূর্ব সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব এ কথা বলেন।

একাদশ সংসদ নির্বাচনের পর এই প্রথম র‌্যালীকে কেন্দ্র করে রাজধানীতে ব্যাপক শোডাউন করে বিএনপি। র‌্যালী শুরুর আগে পুরো নয়াপল্টন সড়ক ব্যাপক মানুষের উপস্থিতিতে জনসমুদ্রে পরিণত হয়। রাজধানীর বিভিন্ন থানা ও ওয়ার্ড থেকে মিছিল নিয়ে র‌্যালীতে অংশ নেন বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, কৃষক দলসহ অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী।

দলীয় ও জাতীয় পতাকা, রঙ-বেরঙের ব্যানার-ফেস্টুন, জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের প্রতিকৃতিসহ নানা বাদ্যযন্ত্র নিয়ে তারা অংশ নেয়। র‌্যালীতে মশারী টানিয়ে মহানগর দক্ষিণের নেতা-কর্মীরা এসিড মশা প্রতিরোধে জনসচেতনতার বিষয়টিও তুলে ধরে।

ট্রাকের ওপর দলীয় সঙ্গীতের পাশাপাশি খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে রেকর্ড করা বিভিন্ন সঙ্গীতও বাজতে শুনা যায়। এ ছাড়াও সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রয়াত জিয়াউর রহমান ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নামে নানা স্লোগান দিতে দেখা যায় নেতাকর্মীদের। সাড়ে ৩টার দিকে র‌্যালী শুরু হলেও নেতাকর্মীরা দুপুর ১২টা থেকেই মিছিল নিয়ে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ও এর আশপাশে এসে অবস্থান নিতে থাকে।

দলের প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানির পরিচালনায় দলের সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীও বক্তব্য দেন। র‌্যালীতে আরও অংশ নেন- বিএনপির আবদুল্লাহ আল নোমান, বরকতউল্লাহ বুলু, মো. শাহজাহান, আবদুল আউয়াল মিন্টু, এজেডএম জাহিদ হোসেন, আহমেদ আজম খান, জয়নুল আবদিন ফারুক, মশিউর রহমান, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, আবদুল হাই, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, শামা ওবায়েদ, মাহবুবে রহমান শামীম, শিরিন সুলতানা, এবিএম মোশাররফ হোসেন, মীর সরফত আলী সপু,মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, আব্দুস সালাম আজাদ, আবদুল আউয়াল খান, খোন্দকার মাশুকুর রহমান, তাইফুল ইসলাম টিপু, মুনির হোসেন, বেলাল আহমেদ, আমিরুল ইসলাম খান আলিম, রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, দেওয়ান মো. সালাউদ্দিন, হাসান উদ্দিন সরকার, নাজিমউদ্দিন আলম, সেলিম রেজা হাবিব, ইশরাক হোসেন, খন্দকার মারুফ হোসেন, নবী উল্লাহ নবী, আবু নাসের মো. রহমাতুল্লাহ, সাদেক খান, সাইফুল আলম নিরব, সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, মোরতাজুল করীম বাদরু, শফিউল বারী বাবু, আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, আনোয়ার হোসেইন, আফরোজা আব্বাস, জেবা খান, সুলতানা আহমেদ, হেলেন জেরিন খান, রাজীব আহসান, আকরামুল হাসান প্রমুখ।

(সন্ধি নিউজ/এসপিএন/ওএইচ)

Developed by e-Business Soft Solution